বাঙালি রেসিপি পুঁইশাক দিয়ে মসুর ডাল

in আমার বাংলা ব্লগlast month

হ্যালো বন্ধুরা,

বাঙালি খাবারে ডাল ছাড়া কিছু তেমন জমে না। বিশেষ করে মসুর ডালকে একটা কমন কিছু হিসেবে ধরা হয়। যত ভালই রান্না করা হোক না কেন আমাদের দেশের কিছু অঞ্চল রয়েছে, সেখানকার মানুষজন মসুর ডাল ছাড়া একদমই খেতে পারে না। আমি প্রথম বার দেখেছিলাম, আমাদের পাশের এক অঞ্চলের মানুষ পোলাও এর সাথে মসুর ডাল খাচ্ছে। সেদিন আমি খুবই অবাক হয়েছিলাম। এটা নাকি তাদের পছন্দের খাবার।

বিষয়টি যাইহোক, মসুর ডাল প্রায় অঞ্চলের মানুষের নিকট প্রিয় খাবার এবং মসুর ডাল ছাড়া তারা কিছু চিন্তা করতে পারেন না। হ্যা, কম বেশী আমার নিকটও পছন্দ। তবে বিয়ের পর খুব বেশী খাওয়া হয় না। আম্মু রান্না করতেন নানা পদ মসুর ডাল দিয়ে এবং সবগুলোই খেতে বেশ স্বাদের হতো। এখন মসুর ডাল অনেক কম খাওয়া হয়, কারন মসুর ডালে নাকি গ্যাস হয় পেটে। কি সুযোগ চিন্তা করেন, গ্যাস আর কেনা লাগবো না, খালি সিলিন্ডারের সাথে সংযোগ দিয়ে দিলেই হয়ে যাবে, হি হি হি হি।

Wvj .jpg

আমার আবার গ্যাসের সমস্যা আছে, কিন্তু বাড়ীর কেউ শুনেই না। বলে গ্যাস ট্যাস লাগবে না, মসুর ডাল কম কম খাও আর আমাদের শান্তিতে থাকতে দাও। বলে রাখছি আমার শরীর খারাপ হলে বাড়ীতে কেউ শান্তিতে থাকতে পারে না কারন আমি যে বাড়ীতে থাকি। চুপি চুপি বলি আমি বাড়ীতে থাকলে পুরো বাড়ী গরম হয়ে যায়, একটু ভিন্ন টাইপের কিনা। শান্তি অশান্তি যাই হোক, আমি আমার মতো আছি এবং থাকবো, এইডা নিশ্চিত করে দিলাম, হি হি হি।

হাসি বাদ দিয়ে চলুন দেখি পুঁইশাক দিয়ে মসুর ডালের রেসিপি। তবে বলে রাখছি আজকের রেসিপির পুরো ক্রেডিট আপনাদের ভাবির, আমার ভাবি না কিন্তু। উল্টোটা ভাবলে আবার উল্টো হয়ে যাবে, হি হি হি। তবে আমি ফটোগ্রাফার হিসেবে আজ বেশী ভূমিকা পালন করেছি আর এখন লিখছি।

IMG20211001135231.jpg

উপকরণ সমূহঃ

  • পুঁইশাক
  • মসুর ডাল
  • পেঁয়াজ
  • কাঁচা মরিচ
  • আদা পেষ্ট
  • লবন
  • ধনিয়া গুড়া
  • হলুদ গুড়া
  • মরিচ গুড়া
  • তেল।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

IMG20211001135259.jpg

প্রথমে পুঁইশাকগুলোকে সুন্দর করে পরিস্কার করে কিছুটা ছোট ছোট করে নেব। তবে পানি দিয়ে ভালোভাবে পরিস্কার করে নিতে হবে।

IMG20211001135542.jpgIMG20211001135616.jpg

প্রথমে একটি কড়াই চুলায় বসিয়ে গরম করবো, তাতে কিছুটা তেল দিবো তার সাথে পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ দিবো।

IMG20211001135858.jpgIMG20211001135929.jpg

এরপর হলুদ, মরিচ, ধনিয়া গুড়া এবং আদা পেষ্ট দিয়ে কষা করবো কিছু সময়।

IMG20211001141007.jpgIMG20211001141233.jpg

কষা হয়ে গেলে মসুর ডাল দিয়ে মিক্স করবো এবং তারপর পরিস্কার করে রাখা পুঁইশাকগুলো দিয়ে দিবো।

IMG20211001141313.jpgIMG20211001141345.jpg

কষানো মসলার সাথে পুঁইশাক মেশানোর চেষ্টা করবো তারপর কিছুটা সময়ের জন্য ঢেকে দিবো।

IMG20211001142341.jpgIMG20211001144319.jpg

এখন কিছুটা পানি মেশাবো এগুলো সাথে তারপর পানিগুলো টানার আগ পর্যন্ত রান্না চালিয়ে যাবো। যদি ঝোল ঝোল রাখতে চান তাহলে একটু পরই নামিয়ে ফেলবেন, আর ঝোল বেশী না রাখতে চাইলে আরো কিছুটা সময় রান্না করতে হবে।

IMG20211001230229.jpg

দেখুন কতো সুন্দর হয়েছে রান্নাটা, না শুধু দেখে বলছি আমি কিন্তু এখনো খেয়ে দেখতে পারি নাই। কি আর করার, বাকীটা আপনারাই বলে দিন, হি হি হি।

ধন্যবাদ সবাইকে।
@hafizullah

break.png
Leader Banner-Final.pngbreak.png

আমি মোঃ হাফিজ উল্লাহ, চাকুরীজীবী। বাংলাদেশী হিসেবে পরিচয় দিতে গর্ববোধ করি। বাঙালী সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য লালন করি। ব্যক্তি স্বাধীনতাকে সমর্থন করি, তবে সর্বদা নিজেকে ব্যতিক্রমধর্মী হিসেবে উপস্থাপন করতে পছন্দ করি। পড়তে, শুনতে এবং লিখতে ভালোবাসি। নিজের মত প্রকাশের এবং অন্যের মতামতকে মূল্যায়নের চেষ্টা করি। ব্যক্তি হিসেবে অলস এবং ভ্রমন প্রিয়।

break.png

banner-abb4.png

Sort:  
 last month 

মুসুর ডাল দিয়ে পুঁইশাক আমি কখনও খাই এবং এই রেসিপি নাম ও শুনিনি। তবে ভাইয়া আপনার রেসিপি দেখে আমার মনে হচ্ছে খুবই টেস্টি হয়েছে ।ধন্যবাদ ভাইয়া।

You've got a free upvote from witness fuli.
Peace & Love!

 last month 

ভাই আপনার পোশাকের রেসিপিটি এত সুন্দর করে উপস্থাপন করেছেন দেখেই তো খেতে ইচ্ছা করছে। বর্ণনামূলক ক্ষমতা সুন্দর হয়েছে এবং রেসিপিটি মাশাল্লাহ অনেক সুন্দর হয়েছে। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ এত সুন্দর একটা রেসিপি আমাদের সামনে তুলে ধরার জন্য।

 last month 

ধন্যবাদটা বেশী প্রাপ্য কিন্তু আপনার ভাবি, আজকের রেসিপিতে তার অবদান বেশী।

 last month 

মসুর ডাল দিয়ে পুঁইশাক বাঙালির জন্য একটা সুস্বাধু খাবার। পুঁইশাক এমন একটা জিনিস মানুষের শরীরে ভিটামিনের ঘাটতি পূরণ করে। এবং কি মানুষের শরীরের ক্যালরি চাহিদা পূরণ করে। হ্যাঁ ভাইয়া একটা কথা সত্যি বলেছেন মায়ের হাতের রান্নার তুলনাই হয়না। আমিও বাড়িতে যতদিন ছিলাম শহরমুখী হওয়ার আগ পর্যন্ত বিভিন্ন শাক সবজির ৪/৫ পদ মিলিয়ে ডাল দিয়ে খুব সুন্দর করে পাক করতো মা খেতে এত মজা লাগতো যা বলা বাহুল্য। আমাদের ভাবি অনেক সুন্দর করে পাক করতেছে আর আপনি অনেক সুন্দর করে সাজিয়ে গুছিয়ে উপস্থাপন করেছেন আপনার নিজের মত করে। আপনি কবি সাহিত্যিক মাঝেমধ্যে আমার চিন্তায় পড়ে যাই। ডাল দিয়ে পুঁইশাকের রেসিপি টা এককথায় অসাধারণ হয়েছে ভাইয়া। বাবি এবং আপনাদেরকে দু'জনকেই শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

 last month 

হ্যা, এটা সত্য আমাদের বাড়ীতে প্রায় সময় এইভাবে খাওয়া হয়। বেশ ভালো লাগে খেতে ।

 last month 

দুটাই আলাদা আলাদা খেয়েছি। একসাথে খেয়ে দেখিনি। তবে আমি আবার একটু মসুর ডাল কম খাই, কেনো জানি ভাল লাগে না। যদিও মাঝে মাঝে খাই ফলে একদিণ টেস্ট অবশ্যই করতে হবে। পুঁইশাক এর সাথে মসুর ডাল বেশ মজেছে যা বুঝছি।

 last month 

একবার ট্রাই দেখুন একসাথে কি মজা হয়, তবে ভিন্ন ‍কিছু হলে আমায় দোষ দিতে পারবেন না বলে দিলাম আগেই হি হি হি।

পুঁইশাক দিয়ে মসুরের ডাল কখনো খাওয়া হয়নি।আপনি আপনার রেসিপি খুব সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করেছেন।দেখে মনে হচ্ছে এটা খেতে বেশ সুস্বাদু হবে।ধাপে ধাপে অনেক সুন্দর ভাবে বর্ণনা দিয়েছেন।অনেক ধন্যবাদ আপনাকে পোস্টটি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য।ভালোবাসা রইলো ভাই।

 last month 

এটা বেশ স্বাদের একটা রেসিপি, খেয়ে দেখতে পারেন ভালো লাগবে। ধন্যবাদ

 last month 

পুঁইশাকের সাথে মসুর ডাউলের রেসিপিটা অসাধারণ হয়েছে ভাই।মসুরের ডাল আমার কাছে খুব প্রিয়।তবে পুইশাক আমার খুব একটা ভালো লাগে না।তবে বাড়িতে যখন রান্না করে তখন না খেয়ে পার থাকে না।আপনি ধাপে ধাপে সব কিছু বর্ণনা করেছেন যা সহজেই সব বুঝা যাচ্ছে রেসিপিটা।ভাইয়া শুভ কামনা রইল আপনার জন্য।

 last month 

তবে দুটো একসাথে খেলে ভালো লাগবে। ট্রাই করে দেখুন।

 last month 

আমি পুইশাক অনেক পছন্দ করি। সব শাক থেকে এটা এক নাম্বারে আছে। আমার আম্মু আগে রান্না করতো এই পুইশাক আর ডালের তরকারি। যা মজা লাগতো, আজকে আপনার রেসিপি দেখে মনে পরে গেল।
ভাইয়া আজকে নিশ্চিত খাবার জমে গেছে পুরা। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে, এতো সুন্দর ভাবে ধাপে ধাপে রেসিপি পরিবেশন করে আমদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

 last month 

পুঁইশাক খেতে আমারও ভালো লাগে। তবে ডাল দিয়ে খেতে বেশী ভালো লাগে। ধন্যবাদ

 last month 

আজকে একদম স্বাস্থ্যকর একটি রেসিপি দিয়েছেন ভাইয়া। আসলে আমাদের জীবনে স্বাস্থ্যকর খাবারের প্রয়োজনীয়তা যে কত বেশি তা আমরা যেনো বুঝেও বুঝিনা।
আপনার রেসিপি তো সবসময় ই অনেক ভালো হয়। আজকেও খুব ভালো হয়েছে ভাইয়া।

 last month 

গ্যাস একটু একটু হবেই তাই বলে কি আর ডাল খাওয়া বন্ধ করা যাবে। মোটেও না। চালিয়ে যান ভাই আমি আছি আপনার সাথে একই দলে।

 last month 

পুঁইশাক এমনিতেই খেতে ভালো না লাগলেও মসুর ডাল দিয়ে রান্না করলে বেশ সুস্বাদু হয়। আপনার রেসিপির বিবরণ এবং ছবিগুলো খুব সুন্দর হয়েছে। ধন্যবাদ আপনাকে।

 last month 

ভাই ঠিকই বলেছেন যেকোন খাবারে মসুরের ডাউল খেতে খুবই পছন্দ করে। পুইশাক দিয়ে মসুরের ডাউল রান্না ভালোই লাগে। এটা বাঙালিদের কাছে প্রিয় খাবারও বটে।এতো সুন্দর রেসিপি শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই।

 last month 

ভাইয়া আপনি অসাধারণ লিখেছেন। পুঁইশাক ও মসুর ডালের রেসিপির বর্ণনা ও ফটোগ্রাফি সত্যিই অতুলনীয় হয়েছে। এত সুন্দর একটি রেসিপি আমাদের উপহার দেয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই।

 last month 

পুঁইশাক দিয়ে ডাল আমার অনেক ভালো লাগে। আর বিশেষ করে শীতকাল এটা খাইতে আমার কাছে বেশি ভালো লাগে। অনেক সুন্দর ভাবে উপস্হাপন করেছেন আপনি।

 last month 

পুঁইশাক আর মসুর ডাউল কেন জানি না আমার খুব অপছন্দের। কিন্তু আমার মা শুনেই না কেন জানি এটা খাওয়ার জন্য বেশি জোড় করে।

পুঁইশাকের সাথে মসুর ডাউলের রেসিপিটা খুব সুন্দর হয়েছে ভাই। এবং বর্ণ টা খুবই সুন্দর লাগছে।

 last month 

ধন্যবাদ ভাই, আসলে সকলের পছন্দ কখনো একই রকম হয় না, এটাই সাভাবিক।

 last month 

হুম ভাই।

 last month 

সুন্দর রেসিপি

 last month 

গল্প শুনে মুখে দিলাম,লবনের খোঁজে চিটাগং গেলাম।
বাড়িতে লবন নাই। তাতে কি? রেসিপি বলে কথা। হিহিহি।

 last month 

ভাইয়া মসুর ডাল সব জেলার মানুষের পছন্দ করে। তবে চট্টগ্রামের মানুষ একটু বেশি পছন্দ করে। মসুর ডাল আলুর ভর্তা হলে নাকি আর কিছু লাগে না।
ভাইয়া আমার খুব পছন্দের একটি রেসিপি শেয়ার করেছেন আমাদের মাঝে।মসুরের ডাল দিয়ে পুঁইশাকের সুস্বাদু তরকারি খুবই পছন্দের।। ভাইয়া খুব সুন্দর ভাবে ধাপে ধাপে মসুর ডাল দিয়ে পুঁই শাকের রেসিপিটি উপস্থাপন করেছেন আমাদের মাঝে। দেখে মনে হচ্ছে অনেক সুস্বাদু হবে। ভাবির রান্নার প্রশংসা করতেই হবে।

তবে ভাইয়া আপনার এই লেখাটি পড়ে হাসতে হাসতে পেট ব্যথা হয়ে গেছে।
"কারন মসুর ডালে নাকি গ্যাস হয় পেটে। কি সুযোগ চিন্তা করেন, গ্যাস আর কেনা লাগবো না, খালি সিলিন্ডারের সাথে সংযোগ দিয়ে দিলেই হয়ে যাবে"🤣🤣
ধন্যবাদ ভাইয়া"

 last month 

মাংসে যে রকম প্রোটিন রয়েছে।সেই রকম প্রোটিন আছে মসুর ডালে।
এই প্রোটিনকে বলা হয় উদ্ভিজ প্রোটিন।
আর একে গরীবের মাংসও বলা হয়ে থাকে।
তাছাড়া মসুর ডালে ভিটামিন-ইও রয়েছে,যা চুল ঘন কালো ও শরীরের চামড়া চিকচিক বা মসৃন করতে সাহায্য করে।

পক্ষান্তরে আসা যাক পুুঁইশাক সম্পর্কে।
কথায় আছে-

মাছের সেরা রুই,
শাকের সেরা পুঁই।

তাছাড়া পুঁইশাকে রয়েছে আয়রন,ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন-এ, যা আমাদের রক্ত,হাড় ও চোখের উপকার করে থাকে।

এতোগুলো পুষ্টি সমৃদ্ধ রেসিপি করে অনেক ভালোই করেছেন ভাই।আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

 last month 

ভাইয়া আপনি মসুর ডাল খাওয়া কমিয়ে দিয়েছেন বলেই হয়তো গ্যাসের দাম দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। 😄😄
পুঁইশাক দিয়ে মসুর ডাল রেসিপি অনেক সুন্দর হয়েছে ভাইয়া। আমার মা এই রেসিপিটি মাঝে মাঝে তৈরি করেন। আমি আমার মায়ের হাতের পুঁইশাক দিয়ে মসুর ডাল খেয়েছি খুবই মজা লাগে। আপনার রেসিপি দেখে মনে হচ্ছে অনেক মজাদার হয়েছে। অনেক সুন্দর ভাবে আপনি উপস্থাপন করেছেন। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি ভাইয়া এই মজাদার রেসিপি আমাদের মাঝে তুলে ধরার জন্য।

 last month 

পুঁইশাক দিয়ে মসুরেে ডাউল রেসিপিটা অনেক ভালো লাগলো। খুব লোভনীয় একটা রেসিপি শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ আপনাকে

 last month 

পুঁইশাক ও মুসুর ডাল দিয়ে আপনি সুন্দর একটি রেসিপি তৈরি করেছেন। দেখে মনে হচ্ছে খেতে খুবই মজাদার হয়েছে। আমরা বাঙালিরা মসুর ডাল দিয়ে বিভিন্ন ধরনের রেসিপি তৈরি করি। তবে মসুর ডাল দিয়ে বিভিন্ন ধরনের রেসিপি আমার ভালই লাগে। পুঁইশাক দিয়ে মসুর ডাল খেতেও অনেক মজা হয়। আপনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি ভাইয়া এই লোভনীয় খাবারের রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য।

 last month 

খুব সুন্দর রেসিপি ভাইয়া।তবে কখনো পুইশাকের সাথে মসুরের ডাল রেসিপি খাওয়া হয় নি।তবে লাউয়ের সঙ্গে খেয়েছি।এটি অনেক পুষ্টিকর।ধন্যবাদ আপনাকে।

 last month 

পুঁইশাক আর মুসুরির ডাল রেসিপিটা দেখে আমার খুব খেতে ইচ্ছা করছে। দেখে অনেক সুস্বাদু মনে হচ্ছে। এই রেসিপিটা বাঙালিরা কাছে খুবি পরিচিত। বিশেষ করে আমাদের বাড়িতে মাঝে মধ্যে এই রেসিপিটা তৈরি করা হয়। আমার এই রেসিপিটা খেয়ে খুবই ভালো লাগে। আপনার হাতের রেসিপি দেখে খুবই সুস্বাদু মনে হয়েছে।তাই বারবার খেতে ইচ্ছে করছে। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

 last month 

পুঁইশাক আর মসুর ডাল শরীরের জন্য খুবই উপকারী। কিছু দিন আগে ডাক্তার আমাকে সবুজ শাক সবজি খেতে বলছে। মসুর ডাল আর পুঁইশাক একসঙ্গে আমি কোনদিন খাইনি। আপনার রেসিপিটি দেখে বাসায় তৈরি করার চেষ্টা করব।

 last month 

ভাইয়া পোলাও ভাতের সাথে মসুর ডাল খাওয়ার ব্যাপারটা শুনে আমিও বেশ অবাক হলাম। বাঙালির ডাল ভাত ছাড়া চলেনা। আমারও মসুর ডাল দিয়ে যে কোন তরকারি রান্না খুবই পছন্দের। বিশেষ করে মসুর ডাল দিয়ে পুঁইশাক রান্না খুবই মজাদার একটি খাবার। আমার আম্মু প্রায়ই পুঁইশাক দিয়ে মসুর ডাল রান্না করে। আর সেদিন আমি একটু ভাত বেশি করে খাই। কারণ এই খাবারটি আমার খুব পছন্দের। ধন্যবাদ দাদা এত সুন্দর একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য।

খুব মজাদার একটি রেসিপি পুঁইশাক দিয়ে মসুর ডাল।আমি এই খাবার টা প্রায় মাঝে মাঝে খায়। আমার কাছে খুবই ভালো লাগে। ধন্যবাদ এতো দারুন একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য।

 last month 

পুইশাক দিয়ে মসুরের ডাউল রেসিপি টা আমার খুবই ভালো লাগলো। আমার অনেক প্রিয় একটি খাবার। বাসায় থাকতে আম্মু রান্না করতো। আপনি অনেক সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করার জন্যে আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই

Coin Marketplace

STEEM 0.65
TRX 0.10
JST 0.074
BTC 56766.96
ETH 4499.60
BNB 620.33
SBD 7.24