চায়ের কাপে হারিয়ে যাওয়া বিস্কিটের জীবন চাই না! // ১০% বেনিফিশিয়ারি @shy-fox কে।

in আমার বাংলা ব্লগ2 months ago

জীবনে চাওয়ার কি কোন শেষ আছে? না, আসলেই নেই। এইতো কিছুদিন আগেই ভাবতাম একটু গুছিয়ে সংসার করে উঠতে পারলেই হয়তো আর কিছু চাইবো না। তারপর দেখলাম চাওয়ার লিস্টটা ধীরে ধীরে বড় হতে শুরু করেছে। এবং এটা যে কখনোই থামবে না সেটা সহজেই বোধগম্য। জানি, এটা হয়ত সকলেরই হয়। তারপরও মাঝে মাঝে মনে হয় চাওয়ার কাছে হেরে যাচ্ছি না তো!

USER_SCOPED_TEMP_DATA_orca_share_media1630074356189_6837027392464599137.jpeg

আসলে কি চাই আমরা জীবনে?
একটু সুখে থাকা।
সেই সুখে থাকার জন্য অনেক রকমের উপকরণ। এইতো...

শুনতে খুব কম মনে হলেও এই সব চাওয়া এবং উপকরণের যোগান দেয়াকে ঘিরে জীবনটা মাঝে মাঝে অনেক জটিল হয়ে যায়। সময়ের ব্যবধানে আমরা হারিয়ে যাই চাওয়া-পাওয়ার হিসেবের খাতার ভিতরে।

অবে যায় হোক, মানতে হবে যে চাওয়া না থাকলে জীবন খুব পানসে হত।

তো যা বলছিলাম...

যদি আমরা চাওয়ার ইচ্ছাটাকে খুব করে দমিয়েও রাখি, তারপরও কিছু চাওয়া আছে যা থেকে আমাদের কারোরই বের হয়ে যাওয়া উচিত না। এই যেন, হারতে না চাওয়া, কাউকে কষ্ট দিতে না চাওয়া। এগুলো তো দোষের কিছু নয়!

জীবনের যাতাকলে কতকিছুই তো হারতে হয়। তবে এই চাওয়াটা জিইয়ে রাখাই যায়, চায়ের কাপে বিস্কিটের মত আমরা কেউই হারিয়ে যেতে চাই না।

received_573398977046605.jpeg

কি বোঝাতে চাই এই কথার দ্বারা?

জীবনটা খুব কঠিন নয় যদি আমরা সেভাবে দেখি। জীবনের ঘোরপ্যাঁচে পরে হয়ত খানিক কঠিন লাগে, কিন্তু দিনের শেষে ফোকাস ঠিক থাকলে হারিয়ে যেতে হয় না।

অনেক টাকাকড়ি, গাড়ি বাড়ি থাকা দোষের কিছু নয়, কিংবা এগুলো চাওয়াও জীবনের স্বাভাবিক ফলোশ্রুতি। দিনের শেষে হিসেবের খাতায় ঠিক তাই যোগ হয় জা কিছু আমাদের মনকে ভরায়। সে গাড়ি বাড়ি হোক বা স্রষ্টার তুষ্টির প্রার্থনাই হোক।

হারিয়ে যেতে হয়না যদি আমরা জানি ঠিক কোথায় যাচ্ছি। নিজস্বতা নিয়ে বেঁচে থাকা যায় যদি আমরা বিশ্বাস করি ' আমিত্তে'।

এই এতটুকুই...

এটা থেকেই চায়ের কাপে হারিয়ে যেতে হয় না।

তাই নয় কি?

ছবিগুলো বছর দুয়েক আগের, আমার মোবাইল ক্যামেরায় তোলা, সেন্টমার্টিন দ্বীপ, বাংলাদেশ থেকে।

jo.jpg

আমি জনি, বাংলাদেশ থেকে। একটু ঘরকুনো মানুষ। ভালোবাসি পরিবারের সাথে সময় কাটাতে। সময় পেলে মুভি, ডকুমেন্টারি বা খেলা দেখা হয়। মোবাইলে টুকটাক ছবি তুলি। ক্রিপ্টো নিয়েও আগ্রহ গড়ে উঠছে।

ধন্যবাদ আমার পোস্টটি পড়ার জন্য।