গত কয়েকদিনে ঘটে যাওয়া কিছু নেতিবাচক বিষয়।

in আমার বাংলা ব্লগ2 months ago (edited)

আজ - ২৮ই আশ্বিন | ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |বুধবার | শরৎকাল |


আসসালামু-আলাইকুম। আদাব - নমস্কার। মাতৃভাষা বাংলা ব্লগিং এর একমাত্র কমিউনিটি আমার বাংলা ব্লগ এর ভারতীয় এবং বাংলাদেশী সদস্যগণ, আশা করি সবাই ভাল আছেন।

আজ আমি আপনাদের সাথে গত কয়েকদিনে আমার সাথে ঘটে যাওয়া কিছু নেতিবাচক বিষয় নিয়ে কথা বলব।




concept-gf10df9209_1920.jpg

ছবি এখানহতে নেওয়া হয়েছে।

আজ কয়েকদিন ধরে আমাদের এদিকের আবহাওয়াটা কেমন জানি অদ্ভুত আচরণ করছে । দিনের বেলা খটখটে রোদ ,গরম কিন্তু রাতের দিকে প্রচন্ড বজ্রপাতসহ মুষলধারে বৃষ্টি। এরকমটা যে শুধুমাত্র একদিন দুইদিন হচ্ছে তা কিন্তু নয়। বেশ কয়েকদিন যাবৎ এমনটা ঘটছে। আর বজ্রপাত এমন জোরে জোরে হয় যেন এক মুহূর্তে সব কিছু ভেঙে লন্ডভন্ড করে ফেলবে। আর বিদ্যুৎ চমকানো এটাও মনে হয় যেন এখনই সকাল হয়ে গেছে। খুব ভয়ঙ্কর এক অবস্থা সৃষ্টি হয় তখন। খবর দেখে জানতে পারলাম দক্ষিণাঞ্চলের কিছু মানুষের প্রাণহানি হয়েছে এসব বজ্রপাতের কারণে। অবশ্য শহরের তুলনায় গ্রামেরদিকে এসব বজ্রপাতের কারণে মানুষের প্রাণহানি বেশি দেখা যায়। আর এই প্রান হানি ব্যাপারটা আমার কাছে খুবই দুঃখজনক লেগেছে। কি তরতাজা প্রাণ গেল যেন এক নিমেষে চলে গেল।

ব্যাপারটি হয়তো আমাদের কাছে একটি সাধারন বিষয়ে লাগতে পারে । কেননা প্রতিবছর তো এরকম বজ্রপাতের কারণে অনেক মানুষের প্রাণহানি হয় ।আর এইসব শুনতে শুনতে আমরা অভ্যস্ত তাই এখন নতুন করে আর খারাপ লাগে না। ঐ সকল মানুষদের আত্মীয়-স্বজনদের কি অবস্থা আমরা হয়তো কখনো উপলব্ধি করতে পারবোনা। কেননা স্বজন হারানোর দুঃখ অনেক বড় দুঃখ। আর এর থেকে বড় যন্ত্রণা আমার মনে হয় না এই পৃথিবীতে আর দ্বিতীয় টি আছে।

যাইহোক এসব কথা বাদ দেই এখন। আজ দেখছি অনেকেই খুব সুন্দর সুন্দর ড্রাই প্রজেক্ট করছে। যেটি আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে। তবে আমি এবারের ইভেন্টে ভালোভাবে তেমন একটা অংশগ্রহণ করতে পারিনি। কেননা এতদিন আমি খুবই ব্যস্ত ছিলাম। ইনশাল্লাহ আগামীকাল একটি সুন্দর ড্রাই প্রজেক্ট নিয়ে হাজির হব। আর এতদিন ব্যস্ত থাকার মূল কারণটি হচ্ছে আমার আম্মু কিছুদিন যাবত অসুস্থ তাই তাকে নিয়ে ডাক্তারের কাছে আনা-নেওয়ার মধ্যে ছিলাম। যাইহোক আম্মু এখন কিছুটা আগের থেকে সুস্থ হয়েছে। বেশ কয়েকজন ডাক্তার দেখানোর পরে এখন আম্মু কিছুটা সুস্থ হয়েছে। এর আগে অনেকগুলো ডাক্তার দেখেয়ে ফেলেছি কিন্তু কোনো কাজে আসেনি। বর্তমানে একটি ডাক্তারের ট্রিটমেন্ট অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠেছে। আসলে আমি মনে করি একজন ডাক্তার সবার প্রথমে তার উচিত, রোগীর সমস্যার কথা মনোযোগ দিয়ে শোনা। এরপর পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে রোগীর রোগ নির্ণয় করা । এরপর সর্বশেষ পর্যায়ে রোগীকে ওষুধ দেওয়া। কিন্তু কিছু ডাক্তার আছে যারা রোগীর কথা ভালোভাবে না শুনে না বুঝে প্রেসক্রিপশনে একগাদা ওষুধ লিখে দেই।

এই ক্ষেত্রে রোগীর ভালো হওয়ার বদলে আরো উল্টো অসুস্থ হয়ে যায়। কেননা ভুলভাল ওষুধ খাওয়ার কারণে। আর যেটি আমার আম্মুর ক্ষেত্রে হয়েছে। যে রোগের সে ওষুধ না দিয়ে অন্য রোগের ওষুধ দিয়ে দিয়েছে। আর ডাক্তারদের রোগীর কথা ভালোভাবে না শুনার অন্যতম কারণ হচ্ছে সময়ের অভাব। অধিক অর্থের লোভে দিনে ৫০-৬০ টা রোগী দেখবে আর প্রেসক্রিপশনে মুখস্ত সব ওষুধ লিখে দিবে।

ইদানিং একটি প্রথা চালু হয়েছে যে ডাক্তারের ভিজিট বেশি সে ডাক্তারের কাছে রোগীরা বেশি যায়।কেননা রোগীরা মনে করে বেশি ভিজিট মানে বেশি ভালো ডাক্তার। আসলে এটি সবসময় সঠিক নয়। অনেক সময় দেখবেন কিছু ডাক্তার বিনা পয়সায় চিকিৎসা করে তার মানে কি, সে সব ডাক্তার কি ভালো নয়। আসলেই সবসময়ই ভাল ডাক্তার মানে যে বেশি ভিজিট এমনটা নয়। যারা কিছু কিছু ক্ষেত্রে ভালো ডাক্তার মানে বেশি ভিজিট যে যাই বলুক সেটা মানতেই হবে। এখানে যারা আছেন তাঁরা দয়াকরে ব্যাপারটিকে অন্যভাবে নিবেন না। আমি এখানে আগেই বলে দিয়েছি সব ডাক্তার কিন্তু সমান না। কেননা বর্তমানে আমার আম্মুকে যে ডাক্তারকে দেখানো হয়েছে তার ট্রিটমেন্ট আম্মু অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠেছে।

এছাড়া অনেক ডাক্তারই রয়েছে যারা করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতিতে ও নিজের জীবনের চিন্তা না করে করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবা করে দিয়েছে আরো অনেক ডাক্তার এ করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে শুধুমাত্র অন্যদের সেবা দানের জন্য।

যাই হোক আজ এ পর্যন্তই। সকলে ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। আমার কথাগুলো কে দয়া করে অন্যভাবে নিবেন না। আমি শুধুমাত্র এখানে আমার অভিজ্ঞতা সাপেক্ষে কথাগুলো বলেছি।


সকলকে ধন্যবাদ অনুচ্ছেদ টি পড়ার জন্য।


Support @heroism Initiative by Delegating your Steem Power

250 SP500 SP1000 SP2000 SP5000 SP

Heroism_3rd.png

Sort:  
 2 months ago 

ভাই আপনি ঠিক বেলেছেন।পরিবেশের অনেক পরিবর্তন ঘটেছে। আর ভাই চিকিৎসা সেবাই ইদানিং অনেক দুর্নীতি হচ্ছে। ভাইয়া আপনার আম্মার জন্য অনেক অনেক দোয়া রইল তিনি যেন সবসময় ভালো থাকেন।

 2 months ago (edited)

কিন্তু কিছু ডাক্তার আছে যারা রোগীর কথা ভালোভাবে না শুনে না বুঝে প্রেসক্রিপশনে একগাদা ওষুধ লিখে দেই।

আমি আপনার এই কথাটির সাথে একদম একমত ভাইয়া। অনেক ডাক্তার আছে অনেক বেশি ভালো ট্রিটমেন্ট দেয়। তবে কিছু ডাক্তারের অবস্থা সত্যিই খুব বাজে।

 2 months ago 

ঠিক কথা বলেছেন, ইদানিং আবহাওয়া পরিবর্তন হচ্ছে, তার সাথে সাথে মানুষের রোগ ও বাড়ছে। আর প্রকৃতির নিয়মই এটা কেউ চলে যাবে আবার কেউ নতুন করে পৃথিবীতে আসবে। যদিও খারাপ লাগে খুব।

আর এখনকার মানুষ ভাবে যেখানে টাকা বেশি খরচ করা যায় সেই জাইগা ই ভাল, নিজের বুদ্ধি দিয়ে যাচাই করবে না কখনো।
অনেক ভাল লাগলো শুনে আপনি এবারের ইভেন্টে অংশ গ্রহণ করছেন। অনেক শুভ কামনা রইল আপনার জন্য।

 2 months ago 

সব ঠিকি বলেছেন ভাই ।ডাক্তারা আসলেই এখন সব চুষে খাচ্ছে ।রোগীর সর্বচ্ছ শেষ করে দিচ্ছে ।তাও ট্রিটমেন্ট বাঞ্চনীয় হচ্ছে না।কিন্তু তাও উপায় নেই ডাক্তারের কাছে যাওয়া না ছাড়া ।ধন্যবাদ ভাই খুব সুন্দর লিখেছেন ।

 2 months ago 

বর্তমানে চিকিৎসা ব্যবস্থা খুবই খারাপ। হাজার হাজার টাকা খরচ করেও ভালো সার্ভিস পাওয়া যায় না। হাজার হাজার টাকা খরচ করে আমরা ডাক্তারকে দেখাই আর ডাক্তার আমাদের রোগের কথাগুলো ভালো ভাবে শুনতে বিরক্ত বোধ করে। তারা মনে করে কতক্ষণে সবগুলো রোগী দেখা শেষ করবে। আসলে এ ধরনের পরিস্থিতিতে নিজেকে খুবই অসহায় মনে হয়। ভাইয়া আপনার আম্মার জন্য অনেক অনেক দোয়া রইল তিনি যেন সবসময় ভালো থাকেন ও সুস্থ থাকেন।

 2 months ago 

আসলে ভাইয়া, প্রকৃতির নিয়ম বোঝা বড়ই কষ্টকর ব্যাপার। তবে এখনার গরম এবং ঠান্ডার কিছু বোঝা যায় না। আকাশে কোনো মেঘ নাই অথচ বৃষ্টি নেমে যায়।

আমার আম্মু কিছুদিন যাবত অসুস্থ তাই তাকে নিয়ে ডাক্তারের কাছে আনা-নেওয়ার মধ্যে ছিলাম।

আপনার আম্মুর জন্য দোয়া করি যাতে তিনি তারাতারি সুস্থ হয়ে যান।

আমাদের দেশের ডাক্তারি ব্যবস্থা দিন দিন অবন্নতির পথে ধাপিত হচ্ছে। বাস্তবতার চিত্রটা আপনে আপনার পোষ্টটে তুলে ধরেছেন।

এতো সুন্দর একটা পোষ্টটা আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। আপনার আগামি কালকের ড্রাই প্রজেক্ট দেখার অপেক্ষায় রইলাম।

 2 months ago 

ভাই পরিবেশ অনেক বেশী পরিবর্তন হয়ে গেছে, প্রকৃতি আগের তুলনায় অনেক বেশী আগ্রাসী হয়ে উঠছে। আর হ্যা, এই কথাটি সত্য বলেছেন, যারা কম ভিজিট নেন আমরা পারত পক্ষে তাদের কাছে যেতে চাই না, ভাবি ভিজিট বেশী নিলে তিনি ভালো ডাক্তার। ধন্যবাদ

 2 months ago 

ঠিক বলেছেন ভাইয়া, বেশ কয়েকদিন ধরে আবহাওয়া এমন চলছে দিনের খটখটে রোদ রাতে বৃষ্টি হচ্ছে এর সাথে বিদ্যুৎ চমকাচ্ছে।আপনা কথায় একম শহরের তুলনায় গ্রাম অঞ্চলে বজ্রপাত বেশি হচ্ছে এবং মানুষ অসচেতন তার কারণেও বজ্রপাতে মারা যাচ্ছে। আমাদের দেশে বছরে অনেক মানুষ মারা যায় গত কয়েক মাস আগের একটি ঘটনা।আমার এখনো মনে আছে বিয়ে করার জন্য যাওয়ার সময় নৌকায় বজ্রপাতে একই পরিবারের অনেক মানুষ মারা গেছে। অনেক দুঃখ দায়ক ছিল।

ভাইয়া, আপনার মায়ের খুব তাড়াতাড়ি সুস্থতা দান করুক এই দোয়া করি।এখন ডাক্তারের কাছে গেলে রোগের সমস্যার শুনে আগে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়ে। এখন যেন ডাক্তাররা ব্যবসা শুরু করে দিয়েছে। ভিজিট নিবে রোগীর সমস্যার কথা সময় নিয়ে শুনবেনা এখন একটি প্রথা হয়ে দাঁড়িয়েছে আমাদের দেশে আমিও এসবের ভুক্তভোগী।

তবে আরো অনেক ডাক্তার আছে করোনা কালীন সময়ে রোগীর চিকিৎসা সেবা দিয়েছে। তাদের নিজের জীবনকে উৎসর্গ করেছে।তাদের কথা আমরা ভুলে যেতে পারিনা। তবে কিছু ডাক্তার কারণে এমনটা বলতে হয়। ধন্যবাদ ভাইয়া

 2 months ago 

দক্ষিণাঞ্চলের কিছু মানুষের প্রাণহানি হয়েছে এসব বজ্রপাতের কারণে
এটা সত্যি খুব খারাপ লাগলো ভাইয়া। আর ডাক্তার এর প্রেসক্রিশনের কথা আর কি বলবো যা মনে চায় তারা তাই করে বিশেষ করে সরকারি হাসপাতাল গুলাতে যাতা অবস্থা। সেদিন গেলাম ১ ঘন্টায় ৩ জন মারা গেল তাই আমি যাকে নিয়ে গেছি তাকে নিয়ে প্রাইভেট হাস্পাতাল চলে আসলাম৷

 last month (edited)

ডাক্তারি পেশা একটি মহৎ পেশা।যার মাধ্যমে মহৎ ব্যক্তি হয়ে ওঠা খুবই সহজ। আমাদের সমাজের মানুষেরা ডাক্তারদের ভগবানের আসনে বসিয়ে দেয়। তারা তাদের উপরে সকল ভরসা রাখে। কিন্তু বর্তমানে কিছু কিছু ডাক্তার রয়েছে তারা রোগীদের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে টাকা কামানোর চিন্তা ভাবনা করে। তারা রুগীদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। এ কারণে সমাজব্যবস্থা আজ ডাক্তারদের উপর থেকে বিশ্বাস হারাতে বসেছে। আবার অনেক ডাক্তার টাকা কামানোর জন্য বর্তমানে অনেকে বেশি ওষুধ লিখে যা গরীব-দুঃখী দের জন্য খুবই কষ্টকর।

 last month 

প্রকৃতি সবসময় তার নিজের নিয়মে চলে। কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি। প্রকৃতির লীলা খেলা বুঝা বড় দায়। মাঝে মাঝে নেমে আসে আমাদের জীবনে প্রাকৃতিক দুর্যোগ। এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ কেড়ে নেয় হাজারো তাজা তাজা প্রাণ।

আপনার মা যেন তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে যান এই কামনাই করি। কিছু কিছু ডাক্তার রয়েছে যারা সব রোগীর প্রেসক্রিপশনে একই ওষুধ লিখে থাকে। সমস্যাগুলো শোনার আগেই লেখা শুরু করে দেন। তখন খুবই খারাপ লাগে। এসব ডাক্তারের খামখেয়ালীপনার জন্যই হাজার হাজার মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছে।

 last month 

সত্যিই ভাইয়া, এখন বৃষ্টি হলেই প্রচন্ড বজ্রপাত হয়।এটি খুবই দুঃখজনক।তাতে অনেক মানুষ অকালে মারা যাচ্ছে।আপনার মায়ের দ্রুত সুস্থতা কামনা করি ঈশ্বরের কাছে।ধন্যবাদ আপনাকে।

আমাদের সবসময় মনে রাখতে হবে যে,ব্যর্থতাই সাফল্যের চাবিকাঠি। জীবনে ব্যর্থতা,কঠিন সময় বা নেতিবাচক সময় বা রাত থাকবে,রাতের পর দিন,দুঃখের পর সুখ, নেতিবাচকের পর ইতিবাচক সময় আসবে।
খুব সুন্দর লেখার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

 last month 

জলবায়ু পরিবর্তনের কারনে এমন হচ্ছে ।আর আপনার আম্মুর সুস্থতা কামনা করছি ভাইয়া ।সত্যি এখনকার ডাই প্রজেক্ট অনেক সুন্দর হচ্ছে ।আসলে সবাই মনোযোগ দিয়ে কাজ করছে । আর অন্যদিকে বেশি ভিজিটের ডাক্তারের কাছে যাওয়ার উদ্দেশ্য হচ্ছে মেন্টাল স্যাটিফেকশন ।

 last month 

ভাইয়া আমাদের এদিকেও দিনের বেলায় প্রচুর গরম পড়ছে এবং রাত্রেবেলা প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে।

ভাইয়া আপনার ডাক্তারের সম্পর্কে করা মন্তব্যগুলোর সঙ্গে আমি একমত পোষণ করি। ভাইয়া আপনি ঠিকই বলেছেন ,এখনকার বেশিভাগ ডাক্তার ই অল্প সময়ে বেশি রোগী দেখার চেষ্টা করেন বেশি টাকা ইনকামের জন্য ।সেজন্য রোগীর কথা ভালো করে না শুনেই মুখস্ত একগাদা ঔষধ প্রেসক্রিপশনে লিখে দেয় এবং যে ডাক্তারের কাছে বেশি বেশি রোগী যায় সেই ডাক্তার তার ভিজিটও বাড়িয়ে দেয়।
কিন্তু আবার এমন অনেক ডাক্তার আছেন যারা বিনামূল্যে মানুষের সেবা করতে চেষ্টা করেন এবং তার যথাসাধ্য চেষ্টায় মানুষের জীবন সুস্থ ও স্বাভাবিক করার চেষ্টা করেন।
ভাই আপনি খুব সুন্দর করে অনুচ্ছেদটি গুছিয়ে লিখেছেন। অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে।

Coin Marketplace

STEEM 0.74
TRX 0.09
JST 0.072
BTC 54541.54
ETH 4072.79
BNB 591.56
SBD 6.99