আলোকচিত্র - জীবন ও জীবিকা (Photography on life and livelihood)

in আমার বাংলা ব্লগ4 months ago

বিপন্ন শৈশব । যে বয়সে শিশুদের বিদ্যালয়ে যাওয়ার কথা, মাঠে দুরন্তপনা করার কথা, সেই সোনালী শৈশব দারিদ্র্যের নিষ্ঠুর কষাঘাতে আজ অভিশপ্ত । ভোর না হতেই রেলস্টেশনে শাক সবজি নিয়ে বসে আছে বিক্রির জন্য, এক মুঠো গরম ভাতের স্বপ্নে বিভোর হয়ে ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ২৬শে জুন ২০১৬, দুপুর ৩ টা বেজে ৪৭ মিনিট
স্থান : কলকাতা , পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

সুন্দরবনের মানুষদের জীবন হলো সংগ্রামমুখর, নারী পুরুষ সবারই উদয়াস্ত পরিশ্রম করতে হয় দু'বেলা দু'মুঠো পেটের ভাত জোগাতে ।সুন্দরবনের একটা গ্রাম নামখানা, সেখানকার একটা নদীতে এই গৃহবধূ মাছ ধরায় ব্যস্ত ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ০৭ই জুলাই ২০১৬, দুপুর ১ টা বেজে ০২ মিনিট
স্থান : সুন্দরবন, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

মাঠ থেকে ঘাস কেটে ফিরছে এক প্রৌঢ়া রমণী । চল্লিশোর্ধ এই বয়সেও তাকে কঠোর পরিশ্রম করে খেতে হয় । আসলে সুন্দরবনের এই বাদা অঞ্চলে সবাইকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয় - নারী থেকে বৃদ্ধ , সবাইকেই ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ৩১শে জুলাই ২০১৬, দুপুর ২ টা বেজে ০৬ মিনিট
স্থান : সুন্দরবন, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

এ ছবিটিও সুন্দরবনের একটি গ্রাম বকখালি থেকে তোলা । সারাদিন শেষে এক রমণী তার ছাগলের পাল নিয়ে চলেছে নিজ ঘরপানে । এক কাঁখে আবার একটি ছাগশিশু ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ৩১শে জুলাই ২০১৬, সন্ধ্যা ৫ টা বেজে ৩৩ মিনিট
স্থান : সুন্দরবন, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

এই আর এক শিশু, সারাদিন মাঠে গরু চরিয়ে এখন বিকেলবেলা ঘরে ফিরছে । আসলে এখন তার স্কুল থেকে ঘরে ফেরার সময়, অথচ দারিদ্রতার কারণে মাঠে গরু চরাতে হচ্ছে ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ৩১শে জুলাই ২০১৬, বিকাল ৪ টা বেজে ৪৪ মিনিট
স্থান : সুন্দরবন, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

হেমন্তের শেষ । মাঠে কৃষক ব্যস্ত তার সোনালী ধান ঘরে তুলতে ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ০৬ই অক্টোবর ২০১৬, দুপুর ১২ টা বেজে ৪৬ মিনিট
স্থান : বারাসাত, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

স্টেশনে দাঁড়িয়ে লোকাল ট্রেন । একটু যেন জিরিয়ে দম নিচ্ছে, পরমুহূর্তে আবার ছুটবে । ট্রেনের কামরায় এক রমণী, কোলে শিশু ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ০৭ই জুলাই ২০১৬, সকাল ১১ টা বেজে ২২ মিনিট
স্থান : ক্যানিং, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

বকখালি সমুদ্র সৈকত । পড়ন্ত বিকেলে পর্যটক দল চলেছে সমুদ্রের পানে ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ০৭ই জুলাই ২০১৬, বিকাল ৪ টা বেজে ০০ মিনিট
স্থান : সুন্দরবন, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

গ্রামের এক যুবক খালে মাছ ধরছে খ্যাপলা জাল দিয়ে ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ০৪ঠা আগস্ট ২০১৬, দুপুর ৩ টা বেজে ১৭ মিনিট
স্থান : সুন্দরবন, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

নদীর জলে ডিগবাজি খাচ্ছে এক দুরন্ত কিশোর ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ৩১শে জুলাই ২০১৬, সন্ধ্যা ৪ টা বেজে ৩৯ মিনিট
স্থান : সুন্দরবন, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

মুষলধারে বৃষ্টির পর মাঠে জল জমে গিয়েছে । সেই জমা জলের মধ্যেই ফুটবল খেলায় মেতে উঠেছে গ্রামের একদল দস্যি কিশোর ।

আলোকচিত্র তোলার তারিখ ও সময় : ০৪ঠা আগস্ট ২০১৬, সন্ধ্যা ২ টা বেজে ১৬ মিনিট
স্থান : সুন্দরবন, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।

ক্যামেরা পরিচিতি : Canon
ক্যামেরা মডেল : Canon EOS 1200D
ফোকাল লেংথ : ৫৩ মিমিঃ

Sort:  
 4 months ago 

প্রতিটি ছবি চরম বাস্তবতার ছবি। ছবিগুলোতে অসম সামাজিকতার আর দারিদ্র্যতা কড়াল গ্রাসের ছবি স্পষ্ট। এ চিত্র প্রাগৈতিহাসিক সময় থেকে চলছে এবং একুশ শতকেও বহমান। এটি চলবে ততদিন যতদিন না সামাজিক বৈষম্য দূর না হবে।

floral-1751088_640.png

 4 months ago 

বাস্তব দুনিয়া সত্যি খুব নিষ্ঠুর :(

 4 months ago 

জি সত্যিই তাই। কিন্তু নিষ্ঠা আর একাগ্রতার সাথে কাজ করতে থাকলে মন্দ ভাগ্য একদিন হাল ছেড়ে দিয়ে বলে, এগিয়ে যা আমি আর পারলাম না।

 4 months ago 

সবগুলো ছবিই অনেক সুন্দর হয়েছে। আর তার সাথে ছবি নিয়ে লিখা কথাগুলো ছবিগুলোকে ফুটিয়ে তুলেছে।

এককথায় অনবদ্য।💖

 4 months ago 

ছবির নিচের ক্যাপশনগুলি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ ।

 4 months ago 

অসাধারণ ন্যাচারাল ছবি তুলেছেন ভাই। দেখে মুগ্ধ হলাম।

 4 months ago 

অনেক ধন্যবাদ আপনাকে :)

 4 months ago 

মানুষের জীবন যাত্রার বাস্তব চিত্র তুলে ধরার জন্য ধন্যবাদ ।অনেক সুন্দর হয়েছে ছবিগুলো।

 4 months ago 

সুন্দর কিন্তু বিষাদমাখা ছবি গুলি :(

এটিকেই বলা হয় জীবনের চাকা যা কখনও কখনও আমরা নীচে থাকি কিন্তু পরের দিন আমরা আরও উচ্চতর হতে পারি এটি অসম্ভব নয়

 4 months ago 

ঠিকই বলেছেন আপনি , আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ :)

আপনাকে স্বাগতম

ন্যাচারাল ছবি তুলেছেন ভাইয়া

 4 months ago 

ধন্যবাদ আপনাকে :)

 4 months ago 

অনেক সুন্দর ছবি তুলেছেন ভাইয়া

 4 months ago 

সুন্দর কিন্তু ছবিগুলি চরম দারিদ্রতার প্রতিমূর্তি

me gusta mucho ese reportaje.

 4 months ago 

আমার শৈশব গুলো তুলে ধরেছেন যাইহোক ছবিগুলো অনেক ভালো ছিল ধন্যবাদ আপনাকে।

 4 months ago 

হ্যাঁ, শেষের কয়েক'টি ছবি শৈশবের কথা মনে করিয়ে দেয় । আমিও গ্রামের ছেলে, ৮ বছর বয়স অব্দি আমার গ্রামেই কেটেছে ।

 4 months ago 

বাস্তবজীবনের কিছু চমৎকার আলোকচিত্র দেখলাম, খুবই নিখুত ফটোগ্রাফি যাকে বলে। বিশেষ করে শেষের চিত্রগুলো বেশ দাগ কেটেছে হৃদয়ে, মনে করিয়ে দিলেন শৈশবের স্মৃতিময় দিনগুলোর কথা।

 4 months ago 

nostalogic করে তুললাম, বলুন ? শৈশব কৈশোরের সময়গুলি এক জন মানুষের সব চাইতে স্বর্ণময় সময় । ফেলে আসা দিন শুধুই কাঁদায় এখন ।

 4 months ago 

ভাল উপস্থাপনা এবং যথাযথ পুরস্কৃত। এরকম উদাহরন steem it এ অনুপ্রেরণার।

 4 months ago 

আপনারাও পারেন এই রকম পোস্ট করতে আমি জানি । এক দিন সময় নিয়ে করে ফেলুন এমন একটি পোস্ট ।

 4 months ago 

ভাই, চেষ্টা করব। MSc xm ৩ তারিখ।

দিনগুলো অতীব চমৎকার। কিন্তু তারপরেও এখনকার এই আধুনিক যুগে এবং কালের বিবর্তনে শৈশবের স্মৃতি গুলো যেন হারিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। এখন আর কোন ছেলেমেয়ে নদীতে গোসল করার দৃশ্য চোখে পড়ে না যদিও পরে সেটা খুবই নগণ্য। তাছাড়া উচিত যে ছবিগুলো যেসকল বৈশিষ্ট্যের প্রকাশ পায় সেগুলো অতীব সুন্দর। তবে এখন আর গ্রামের রাখাল গুলো খুব বেশি একটা দেখা যায় না।

তারপরেও সব মিলিয়ে ভয়ঙ্কর সুন্দর

 4 months ago 

বাদা অঞ্চলের গ্রামগুলিতে কিন্তু এখনো আপনি সেই পুরোনো নিখাদ গ্রামকে খুঁজে পাবেন । একেবারে অজ পাড়াগাঁ যাকে বলে । তাই রাখাল বালকদের উপস্থিতিও সেখানে চোখে পড়ার মতো ।

 4 months ago 

ছবি গুলোর মাধ্যমে বাস্তবতা তুলে ধরেছেন। প্রথম ছবিটি দেখে হৃদয়ের কোনায় কোথায় যেনো একটু ব্যথা অনুভূত হলো। ধারাক্রমে পরের ছবিগুলো দেখে, তাদের হাসিমুখ দেখে অনেকটাই ভালো লাগলো।

 4 months ago 

প্রথম ছবিটাই সব চাইতে বিষাদমাখা । এই ছেলেটি সকালে স্টেশনে আসে, বেলা বাড়লে একটু রুটি, জল খায় আর সন্ধ্যার সময় বাড়ি ফেরে সারাদিনের রোজগার নিয়ে । ভাবা যায় !

 4 months ago 

ছবিগুলো এককথায় অনবদ্য এবং দুর্দান্ত।

 4 months ago 

অনেক ধন্যবাদ তোমাকে :)

 4 months ago 

নান্দনিক উপস্থাপনা

 4 months ago 

তোমাকে অনেক ধন্যবাদ ভাই :)