চিন্তার বেড়াজাল ||@shy-fox 10% beneficiary

in আমার বাংলা ব্লগ2 months ago

ইচ্ছা করে মাঝে মাঝে অনেক কিছু নিয়ে চিন্তাভাবনা করতে। তবে সব চিন্তা গুলো যখন সবার সঙ্গে, মিলেমিশে যখন একটা একত্রে ভালো চিন্তার উদয় হয়, আমি মনে করি তখনই সে চিন্তা ধারাগুলোকে প্রাধান্য দেওয়া উচিত। একক চিন্তা ভালো, তবে সেই চিন্তায় চিন্তিত না থেকে বরং সেই চিন্তাকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিয়ে, সবার যেন একত্রে ভালো চিন্তার উদয় হয়,সেই চিন্তাগুলোকে আমার কাছে বেশি গ্রহণযোগ্য মনে হয়।

ধরুন আপনি একটা বাড়ির গৃহকর্তা এবং আপনার উপর নির্ভর করছে পুরো বাড়ির দায়িত্ব এবং পুরো বাড়ির মানুষের ভরণপোষণ ও তাদের জীবনযাত্রার সবকিছু। তাহলে একটাবার ভেবে দেখুন , আপনাকে কি পরিমান ধৈর্যশীল এবং কী পরিমান নম্র এবং কি পরিমান তীক্ষ্ণ মেধাসম্পন্ন চিন্তার অধিকারী হতে হবে । যেহেতু আপনি বাড়ির প্রধানকর্তা, তাই শুরুতেই আপনার যে চিন্তাশক্তি থেকে চিন্তাটা উদয় হবে, সেটা যেন সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হয় সেই দিকটা সর্বপ্রথম আপনাকে মাথায় রাখতে হবে ।
যেহেতু সবাই রক্তে মাংসে গড়া মানুষ এবং সবাই কমবেশি দিনশেষে নিজস্ব একটা মতামত রাখে এই বিষয়গুলো ভীষণ স্বাভাবিক। তাই সবদিক ভেবে নিজের চিন্তাকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে ,যেন সবাই সেটাকে খুব ভালোভাবে গ্রহণ করতে পারে। সর্বোপরি আপনি যে একাই চিন্তা করছেন ব্যাপারটা যদি এরকম হয় তাহলে কিন্তু অনেকটা এলোমেলো হতে পারে। আমার মনে হয় আপনার চিন্তা ধারা প্রথমে, সবার সঙ্গে শেয়ার করা উচিত এবং তার পরে সবার কাছ থেকে তাদের চিন্তা ধারা অনুযায়ী মতামত নেওয়া উচিত এবং তারপরে সবাই একত্রে বসে, সবাই মিলে সেই চিন্তাধারাগুলোকে বেছে বেছে একত্রে করে, একটা সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।

Screenshot_20211129-000936_Messenger.jpg

"মেজরিটি মাস্ট বি গ্রান্টেড" ইংরেজিতে একটা প্রবাদ আছে । এখন একই পরিবারের যেখানে 10 জন লোক থাকবে, সেখানে দেখা যাবে যে 6 জন লোক আপনার মত করে চিন্তা করছে। বাকি চারজন লোক একটু ভিন্ন চিন্তার অধিকারী । তবে তারা আপনার চিন্তা ধারাকে খুব একটা প্রাধান্য দিতে চাচ্ছে না । আমি মনে করি এটাও একটা ভালো দিক, কারণ প্রত্যেকটা জিনিসের একটা বিপরীত প্রতিক্রিয়া থাকা ভালো । আমি কেন বলছি ভালো দিক, তার প্রথম কারণ হচ্ছে যখন একটা বিপরীত প্রতিক্রিয়া থাকবে, তখন আপনাকে আগে থেকেই সবাইকে নিয়ে বসতে হবে এবং সেই বিপরীত প্রতিক্রিয়া থেকে যেন কিভাবে নিজেদেরকে রক্ষা করা যায়, সেই বিষয়গুলো প্রথম থেকেই মাথায় রাখতে হয় বা হবে, আসলে ব্যাপার গুলো এমনই ।

তবে এটাও মেনে চলা উচিত, যে মানুষগুলো শুরুতেই আপনাদের চিন্তাধারার উপর বিদ্রুপ প্রতিক্রিয়া ফেলছে ,আমি মনে করি তাদের প্রতিক্রিয়া অনুযায়ী তাদেরকে কোন কিছু না বলে বরং চুপচাপ তাদের থেকে দূরে এসে নিজেদের চিন্তায় অগ্রসর হওয়া গুরুত্বপূর্ণ। তবে আপনার বা আপনাদের যখন চিন্তাধারাগুলো সফলতায় রূপ পাবে, তখন বিপরীত প্রতিক্রিয়ার মানুষজনের কিন্তু একটুও চিন্তা ধারায় পজিটিভিটি আসতে পারে । কিন্তু সেই মানুষগুলো হতে কিন্তু আমি মনে করি একটু দূরে থাকাই বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ তাদের বিপরীত প্রক্রিয়া মূলক আচরণ আবার হুটহাট উদয় হতে পারে এবং আপনার সুচিন্তায় অনেকটা ব্যাঘাত ঘটতে পারে এমনটাও কিন্তু ভীষণ স্বাভাবিক।

তবে দিনশেষে আমি একটা কথাই বলতে চাই, যে চিন্তাই করুন না কেন, আগে নিজের থেকে সঠিক চিন্তা গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিন, তারপরে সবার সঙ্গে মিলেমিশে বসে সেই চিন্তা গুলোকে শেয়ার করুন এবং তারপরে যেটা উদয় হবে, সেই ভাবে এগিয়ে চলাই বুদ্ধিমানের কাজ। তবে জীবন আপনার, সিদ্ধান্ত কিন্তু আপনাকেই নিতে হবে। এবং এভাবেই চিন্তার বেড়াজাল গুলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে সর্বত্র ।

ধন্যবাদ সবাইকে ।
Banner.png

ডিসকর্ড লিংক:
https://discord.gg/VtARrTn6ht


20211003_112202.gif


JOIN WITH US ON DISCORD SERVER

banner-abb4.png

Follow @amarbanglablog for last updates


Support @heroism Initiative by Delegating your Steem Power

250 SP500 SP1000 SP2000 SP5000 SP

Heroism_3rd.png

Sort:  
 2 months ago 

চিন্তার বেড়াজালে আমাদের এই ক্ষুদ্র জীবন জরাজীর্ণ। বিভিন্ন পদক্ষেপে আমাদের এই জীবনে বিভিন্ন রকমের চিন্তা এসে ভিড় করে। হয়তো মাঝে-মাঝে এই চিন্তার বেড়াজাল থেকে আমরা নিজেকে মুক্ত করে সফলতার পথে এগিয়ে যেতে পারিনা। কারণ সফলতার পথে বিভিন্ন বাঁধা এসে আমাদের সেই পথ রুখে দাঁড়ায়। নিজের চিন্তা ধারাগুলোকে স্থির করে অন্যের কথায় কান না দিয়ে নিজের সফলতার পথ নিজেই বেছে নেওয়া উচিত। নিজের লক্ষ্য স্থির না থাকলে কখনো সফলতা অর্জন করা সম্ভব নয়। তাই চিন্তার বেড়াজালের মাঝে নিজের সফলতার চিন্তাটি আগে করতে হবে। তারপর সেই পথে এগোতে হবে। আপনার এই পোস্টটি পড়ে অনেক ভালো লাগলো ভাইয়া। আপনার লেখা প্রতিটি কথা আমাদের বাস্তব জীবনের সাথে মিল রয়েছে। এই পোষ্টের মাধ্যমে অনেক কিছু শিখতে পারলাম। ধন্যবাদ আপনাকে দারুন একটি পোস্ট শেয়ার করার জন্য।

 2 months ago 

ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য।

 2 months ago 

তবে দিনশেষে আমি একটা কথাই বলতে চাই, যে চিন্তাই করুন না কেন, আগে নিজের থেকে সঠিক চিন্তা গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিন, তারপরে সবার সঙ্গে মিলেমিশে বসে সেই চিন্তা গুলোকে শেয়ার করুন এবং তারপরে যেটা উদয় হবে, সেই ভাবে এগিয়ে চলাই বুদ্ধিমানের কাজ। তবে জীবন আপনার, সিদ্ধান্ত কিন্তু আপনাকেই নিতে হবে। এবং এভাবেই চিন্তার বেড়াজাল গুলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে সর্বত্র ।

সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়া বিরাট একটি বড় কাজ, আমাদের মাঝে অনেক রকম মানুষ আছে কানের কাছে এসে অনেক রমম কথা বলে এটা না ওটা কর, আর প্রতিবেশীরা তো আছেই, তাই সুস্থ মাথাই চিন্তা করে সঠিক সিদ্ধান্তে পৌছাতে পারলেই প্রকৃত মানুষ হওয়া যায়, অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া এতো সুন্দর কিছু কথা শেয়ার করার জন্য 💓💓💓💓

 2 months ago 

একটি সুন্দর লক্ষ পুরন করতে গেলে আমাদের অনেক ধরনের বাধা পোহাতে হবে, আর এটা আদি যুগ থেকেই চলে আসছে। কোনো একটা সফল মানুষের পিছনে জমে আছে হাজার হাজার কস্টের কথা, শত বাধা পেরিয়ে জয়ের রাস্তায় আমাদের পৌঁছাতেই হবে,

অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া এতো সুন্দর কথা গুলো আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

 2 months ago 

ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য।

 2 months ago 

ভাইয়া আপনি সুন্দর একটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন ।সত্যি আমরা আমাদের এমন ভাবে চিন্তা ভাবনা করা উচিত যাতে সেই চিন্তা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া যায় তবে চিন্তা তো অবশ্যই ইতিবাচক হতে হবে ।আমরা দেখি আমাদের পরিবারের বিশেষ করে অনেক পরিবারে দেখা যায় যে পরিবার প্রধান থাকে সে একাই সিদ্ধান্ত নেয় এবং সে সিদ্ধান্ত সবাইকে মানতে বাধ্য করে ।যার ফলে পরিবারের লোকজনদের মনে কষ্ট লাগে তারা শান্তি মত স্বাধীনভাবে কিছু করতে পারে না ।তবে যদি তাদের মতামতের উপর ভিত্তি করে সবাই মিলে একক সিদ্ধান্তে পৌঁছানো যেত তাহলে অবশ্যই পরিবার ও পরিবারের জন্য অবশ্যই ভালো হতো বা ভালো হবে। বা আমরা যদি কোন কিছু করার পরিকল্পনা করি সেই পরিকল্পনা ভিতরে ভুল থাকতে পারে কিন্তু যখন সবাই মিলে সেই পরিকল্পনার কথা আলোচনা করব আমার মাথায় যে ভুলটা আসতেছেনা অন্য কারো মাথা থেকে সেই ভুলটা ধরার ধরার মতো শক্তি থাকতে পারে সে ক্ষেত্রে আমি বলব আমাদের যে কোনো সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে কম করে হলেও কাছের মানুষদের মতামত নেয়া উচিত। এটা ঠিক অতি সন্ন্যাসীতে গাজন নষ্ট বলে বাংলা একটা প্রবাদ আছে ।সবার সিদ্ধান্ত নিতে গেলে আসল চিন্তা নষ্ট হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে আমি বলব বিশেষ বিশেষ এবং ইতিবাচক লোকজনের সাথে মিলামিশা করে তাদের সাথে চিন্তাভাবনাগুলো শেয়ার করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে ভালো হবে । বলে আমি মনে করি।

 2 months ago 

ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য।

 2 months ago 

আমিও আপনার সাথে একমত ভাইয়া। যে কোনো বিষয় নিয়ে চিন্তা করলে আমি আগে নিজের চিন্তাটা কে প্রাধান্য দিই এবং এরপরে অন্য সবার সাথে মতামতগুলো ভাগ করে নি।এরপরে যদি মনে হয় যে অন্যের মতামত টা ঠিক তখন আমি আমার সিদ্ধান্ত বদলাই। কারণ আমি মনে করি আমরা যদি নিজের সিদ্ধান্ত ঠিক করতে না পারি তাহলে আমরা কখনোই কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার যোগ্যতা রাখবো না। আপনার লিখাটি খুব ভালো লাগলো।

 2 months ago 

ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য।

 2 months ago 

আপনার পোষ্টটি পড়ে আমার খুবই ভালো লাগে ভাইয়া। আপনি খুবই সুন্দর ভাবে আমাদের এই পোস্টয়ের মাধ্যমে উপদেশগুলো দিয়েছেন। এই পোস্টটি আমাদের অনেক উপকারে আসবে। আমরা যখন চিন্তা করি তখন সেই চিন্তাটা গভীরভাবে করতে হবে এবং নিজের কাছে ভাবতে হবে, যে এটা আসলে ঠিক হলো কি ঠিক হলো না। যখন আমরা কনফিউশনে পড়ে যাব। তখন আমরা অন্যজনের কাছ থেকে এর সঠিক পরামর্শ চাইব। কিন্তু আমরা হুট করেই হতাশ হবো না।অল্পতেি যদি আমরা অন্যের কাছ থেকে কোনো পরামর্শ নেই, সেই পরামর্শটা আমাদের জীবনে সঠিকভাবে ফলাফল আসেনা।তাই আমাদের প্রত্যেকেরই এই চিন্তা-ভাবনার নিজেরই তৈরি করতে হবে এবং নিজে সমাধান করার চেষ্টা করতে হবে।

 2 months ago 

ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য। শুভেচ্ছা রইল আপনার জন্য।

 2 months ago 

আপনি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরেছেন ভাইয়া।আমি ও এটি বিশ্বাস করি একজন মানুষের চিন্তার সঙ্গে অন্য আরেকজন মানুষের মতের মিল ও অমিল দুই- ই হতে পারে।তবে একজনের ভালো চিন্তাধারাকে যদি সবাই প্রাধান্য দেয় সেক্ষেত্রে সেই কাজটি দ্রুত সফল হবে এবং পরিকল্পিত চিন্তাধারাটি মজবুত ও দৃঢ় হবে।অনেক সুন্দর ব্যাখ্যা করেছেন।ধন্যবাদ আপনাকে।

 2 months ago 

ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য। শুভেচ্ছা রইল আপনার জন্য।

Coin Marketplace

STEEM 0.40
TRX 0.07
JST 0.054
BTC 42197.23
ETH 3214.94
BNB 476.48
SBD 4.88