তোড়া মাছের রেসিপি ।। বাঙালি রেসিপি

in আমার বাংলা ব্লগ2 months ago

হ্যালো বন্ধুরা, সবাই কেমন আছেন? আশা করি সবাই ভালো আছেন। সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে আজকের ব্লগটি শুরু করছি।

আজকে আমি একটা মাছের রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেবো। আজকে আমি তোড়া মাছের রেসিপি তৈরি করেছি। আশা করি এই মাছের সাথে সবাই পরিচিত। এটা খুবই সুস্বাদু একটা মাছ। এই মাছ আলু, কচুর মুখী ইত্যাদি আরো বিভিন্ন সবজি দিয়েও ভালো সুস্বাদু লাগে। আজকে এই মাছটি আমি কচুর মুখী দিয়ে তৈরি করেছি। কচুর মুখী দিয়েও যথেষ্ট সুস্বাদু লাগে। এখন আমি রান্নার প্রধান বিষয়গুলোর দিকে চলে যাবো।


✾প্রয়োজনীয় উপকরণসমূহ:✾

উপকরণ
পরিমান
তোড়া মাছ
৭ টি
কচুর মুখী
২৪ টি
লঙ্কা
১৩ টি
রসুন
১ টি
সরিষার তেল
৩ চামচ
লবন
৩ চামচ
হলুদ
২ চামচ
জিরা গুঁড়ো
জিরা গুঁড়ো


তোড়া মাছ, কচুর মুখী, লঙ্কা


রসুন, সরিষার তেল, লবন, হলুদ, জিরা গুঁড়ো


এখন রান্না যে প্রসেসে সম্পন্ন করলাম---


✠প্রস্তুত প্রণালী:✠


❖তোড়া মাছগুলোকে প্রথমে কেটে নিয়েছিলাম এবং পরে জল দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিয়েছিলাম। এরপর কচুর মুখীর গায়ের ছালগুলো ফেলে দিয়েছিলাম এবং কেটে নেওয়ার পরে জল দিয়ে ধুয়ে নিয়েছিলাম।

❖রসুনের খোসা ফেলে দিয়ে ছাড়িয়ে নিয়েছিলাম। এরপর লঙ্কাগুলো কেটে জল দিয়ে ধুয়ে নিয়েছিলাম।

❖কেটে রাখা তোড়া মাছের পিচে লবন ও হলুদ দিয়ে দিয়েছিলাম এবং ভালো করে মাখিয়ে নিয়েছিলাম। এরপর ভাজা মতো করে নিয়েছিলাম।

❖কচুর মুখী লাল মতো করে ভেজে নিয়েছিলাম এবং পরে রসুনও ভেজে নিয়েছিলাম।

❖কড়াইতে পরিমান অনুযায়ী তেল দিয়ে দিয়েছিলাম এবং তেল গরম হয়ে আসলে ভাজা উপাদানগুলো, লঙ্কা দিয়ে দিয়েছিলাম। তাতে স্বাদ মতো লবন, হলুদ দিয়ে দিয়েছিলাম। এরপর উপাদানের সাথে মিশিয়ে নিয়েছিলাম।

❖মেশানোর পরে তাতে জল দিয়ে দিয়েছিলাম এবং জল ফুটে উঠলে তাতে ভাজা তোড়া মাছগুলো দিয়ে দিয়েছিলাম। এরপর তরকারি ভালো মতো হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করেছিলাম।

❖অবশেষে কচুর মুখী দিয়ে তৈরি হয়ে গেলো দারুন সুস্বাদু তোড়া মাছের তরকারি।

রেসিপি বাই, @winkles

শুভেচ্ছান্তে, @winkles

______

Support @heroism Initiative by Delegating your Steem Power

250 SP500 SP1000 SP2000 SP5000 SP

Heroism_3rd.png

Sort:  
 2 months ago 

এই মাছটার সাথে আমি একদম নতুন।আপনার রেসিপিটা দেখে মনে হচ্ছে খুবই সুস্বাদু একটা মাছ।আপনার রেসিপির ধরন দেখলে যে কারোর শিখা সম্ভব।রেসিপির বর্ণনাটা আমার কাছে বেশ ভালো লেগেছে।শুভকামনা রইল দাদা।

 2 months ago 

এই মাছটি সব জায়গায় মোটামুটি পাওয়া যায় আমি জানি। আপনাদের ওদিকেও সম্ভবত খালে, বিলে পাওয়া যায়। আপনাদের এলাকায় তাহলে অন্য নামে পরিচিত। কারণ এর আঞ্চলিক অনেক নাম আছে। ধন্যবাদ আপনার মতামতের জন্য।

 2 months ago 

এই মাছটি আমাদের ক্যানেলে খুব পাওয়া যায়।তবে আমি আর আমার দাদা এই মাছটি খাই না।মা -বাবা অবশ্য খান।এটি খুবই পুষ্টিকর।হ্যাঁ আমরা ও এটি আলু দিয়ে খাই।আপনার রেসিপিটি খুব সুন্দর হয়েছে দাদা।ধন্যবাদ আপনাকে।

 2 months ago 

এই মাছ খেতে খুব সুস্বাদু। এই মাছটি মোটামুটি আলু, কচুর মুখী দিয়ে অনেকটা মজার হয় খেতে। ধন্যবাদ তোমাকে মন্তব্যের জন্য।

 2 months ago 

এক কষ্টে আছি আমি ভাইয়া।
কষ্টের কারণ এই মাছটিও চিনলাম না
মনে হচ্ছে এইবার মাছের নাম শিখতে হবে সিরিয়াসলি।
আপনার রেসিপি দেখে খিদা লেগে গেলো।

 2 months ago (edited)

এই মাছটি কিন্তু আরো কিছু নামে পরিচিত যেমন গুচি, বান, বাম এইরকম আরো আঞ্চলিক বিভিন্ন নাম আছে। এই মাছের টেস্ট খুব। একদিন খেয়ে দেখবেন, কিন্তু একবার খেলে কিন্তু মুশকিল, সেটা হলো আপনি তখন এই মাছ খুজবেন খাওয়ার জন্য একভাবে 😁.

 2 months ago 

আচ্ছা বাম মাছ তো চিনি মনে হয়।

 2 months ago 

তোড়া মাছ! নামটার সাথে বেশ রুনুঝুনু ব্যাপার আছে। মাছটার মেয়েদের পায়ে পায়ে ঘোরার স্বভাব আছে নাকি? হিঃ হিঃ।

বরাবরের মতো রান্নাটা বেশ পরিপাটি। 🤗

 2 months ago 

মাছটার মেয়েদের পায়ে পায়ে ঘোরার স্বভাব আছে নাকি

😂না। এই মাছ আছে দেখবে আরো নামে আছে এই মাছ। তুমি অন্য নামে জানো সম্ভবত। গুচি মাছও বলে এরে।

 2 months ago 

তোড়া মাছ আজই প্রথম নাম শুনলাম ।বা আমাদের এলাকায় অন্য নামে ডাকে ।দাদা আপনার প্রতিটি রান্না আমার অসাধারণ লাগে ।আমার কাছে আনকমন রেসিপি প্রতিটা ।আর আপনার উপস্থাপনা দারুন ।ভালো থাকবেন ভাইয়া

 2 months ago 

তোড়া মাছটি আরো কিছু নামে পরিচিত যেমন গুচি, গোচোই, বান, বাম ইত্যাদি। এগুলোর আঞ্চলিক অনেক প্রকার নাম আছে। ধন্যবাদ আপনার সুন্দর একটি মন্তব্যের জন্য।

 2 months ago 

তাইলেএবার ভালো ভাবেই চিনেছি😊😊😊😊

 2 months ago 

তোড়া মাছের রেসিপি অনেক সুন্দর হয়েছে আমি খুব পছন্দ করে খেতে অনেক সুস্বাদু আর শরীরের জন্য উপকারী। ধন্যবাদ আপনাকে ভাইয়া আপনার জন্য শুভকামনা রইলো

 2 months ago 

হ্যা তোড়া মাছের তরকারি বেশ মজাদার, আমিও প্রায় খাই এই মাছটি। আপনাকেও ধন্যবাদ আপনার মতামতের জন্য।

 2 months ago 

ভাইয়া এই মাছের নামটা প্রথম শুনলাম কোন দিন খাই নাই৷ দেখিও নাই৷ কিন্তু নাম টাও এত নতুন লাগলো এটাই অবাক হলাম। যাই হোক রেসিপিটা অসাধারণ ভাবে তুলে ধরেছেন।

 2 months ago 

এই মাছের আরো কিছু নাম আমার জানা আছে যেগুলো শুনলে আরো অবাক হবেন সেটা হলো বাম গুচি, গোচোই, বান। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য।

 2 months ago 

অরে বাবা কত নাম হাহাহাহহা

 2 months ago 

😆

 2 months ago 

লাভ ইট ভাইয়া।

 2 months ago 

এই মাছ আমাদের এদিকে খুব বেশি খায়। আমার আম্মা প্রায় আমার জন্য রান্না করে। তবে কচুর মুখী দিয়ে কখনো খাওয়া হয়নি। আমার কচুর মুখীও খুব পছন্দের। আম্মাকে অবশ্যই বলবো আপনার রেসিপিটা বানাতে।

 2 months ago 

কচুর মুখী দিয়ে বা শুধু কচু দিয়েও অসাধারণ টেস্ট লাগে। অবশ্যই বাড়িতে তৈরি করে খেয়ে দেখবেন, বেশ মজাদার একটা মাছ। ধন্যবাদ।

 2 months ago 

রেসিপিটি দেখতে খুব ভালো লাগছে, এবং আপনি খুব ভালোভাবে ব্যাখ্যা করেছেন, আমাদের বোঝা খুবই সহজ, শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ
🥰🥰

 2 months ago 

আপনাকেও ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্যের জন্য।

 2 months ago 

আপনাকে স্বাগতম

 2 months ago 

দুঃখের বিষয় তোড়া মাছ আমি খাই না। তবে বাবা মা খায়। আমাদের ক্যানালে ভালোই পাওয়া যায়। তুমি ধাপে ধাপে সুন্দর ভাবে রেসিপি টি তৈরি করেছেন। বেশ ভালো লাগলো। শুভেচ্ছা নিও।

 2 months ago 

দাদা আপনি খুবই সুন্দর একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন। তোড়া মাছ খেতে আমার খুবই ভালো লাগে কিন্তু সেটা যদি কচুর মুখি দিয়ে রান্না করা হয় তবে সেটা আরো বেশি সুস্বাদু লাগে। দাদা আপনি খুব সহজভাবে আপনার রেসিপিটি আমাদের মাঝে উপস্থাপন করেছেন যা বুঝতে একটুও অসুবিধা হয়নি ।অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে।

Coin Marketplace

STEEM 0.50
TRX 0.09
JST 0.069
BTC 49860.88
ETH 4391.37
BNB 605.67
SBD 6.10